রাজধানীর মিরপুরে গতকাল রোববার রাতে পৃথক ঘটনায় গণপিটুনি ও ‘বন্দুকযুদ্ধে’ চারজন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে গণপিটুনিতে মারা গেছে তিনজন। তাদের কারও পরিচয় জানা যায়নি।

‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ব্যক্তির নাম আবদুল ওদুদ। তিনি শ্রমিক দলের মিরপুর ১০ নম্বর ওয়ার্ডের আহ্বায়ক।

মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাউদ্দিন খান জানান, রাত ১১টার দিকে শেওড়াপাড়া এলাকায় গাড়িতে অগ্নিসংযোগের সময় তিন তরুণকে হাতেনাতে ধরে ফেলে জনতা। এরপর বিক্ষুব্ধ জনতা তাদের মারধর করে। আহত অবস্থায় পুলিশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সূত্র জানায়, রাত দেড়টার দিকে পুলিশ তিনটি অল্প বয়স্ক ছেলের লাশ হাসপাতালে নিয়ে আসে। তাদের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

বন্দুকযুদ্ধ: ওসি সালাউদ্দিন খানের ভাষ্য, আবদুল ওদুদকে সকালে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর অস্ত্র উদ্ধারে তাঁকে নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালায় পুলিশ। রাত দেড়টার দিকে কল্যাণপুর হাউজিং এলাকায় অভিযান চালাতে গেলে তাঁর সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। দুই পক্ষের গোলাগুলির সময় সহযোগীদের গুলিতে আবদুল ওদুদ নিহত হয়।

ওদুদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে বোমা হামলাসহ একাধিক ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার আসামি।

রাত আড়াইটায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় ওদুদের পরিবারের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন