রাজশাহী কলেজে আরবি ও ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের স্নাতকোত্তর প্রথম পর্বের মৌখিক পরীক্ষায় আবারও শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার থেকে এ পরীক্ষা শুরু হয়।
ওই বিভাগের শিক্ষার্থীদের সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার স্নাতকোত্তর প্রথম পর্বের পরীক্ষার প্রথম দিনে ৯২ জনের পরীক্ষা নেওয়া হয়। এ সময় প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে ২০০ টাকা করে আদায় করা হয়। গতকাল বুধবার ছিল পরের আরও ১৪৪ পরীক্ষার্থীর মৌখিক পরীক্ষা।
গতকাল দুপুর ১২টার দিকে ওই বিভাগে গিয়ে দেখা যায়, ১৩ নম্বর কক্ষে একজন কর্মচারী শিক্ষার্থীদের নামের তালিকা নিয়ে বসে আছেন। প্রত্যেকের কাছ থেকে ২০০ টাকা করে নেওয়ার পর তালিকায় ওই শিক্ষার্থীর নামের পাশে স্বাক্ষর রেখে তাঁর প্রবেশপত্র জমা নেওয়া হচ্ছে।
টাকা নেওয়ার দায়িত্বে থাকা কর্মচারী শিক্ষকের ‘বিশেষ সম্মানী’ হিসেবে টাকাটা নেওয়া হচ্ছে বলে জানান।
বিভাগীয় প্রধান আফসার আলী মুঠোফোনে বলেন, ‘প্রিপারেটরি ক্লাস’-এর জন্য পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে ১০০ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে।
অধ্যক্ষ হবিবুর রহমান বলেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী নিয়মিত ছাত্রদের কাছ থেকে ৭৫ এবং অনিয়মিতদের কাছ থেকে ১০০ টাকা করে নেওয়ার কথা।
তবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নিত্যানন্দ গাইন মুঠোফোনে বলেন, পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণের সময়ই পরীক্ষাসংক্রান্ত যাবতীয় খরচ নিয়ে নেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন