default-image

রাজশাহীর মোহনপুরে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এই অভিযোগে আজ মঙ্গলবার স্বামী মামুন রশীদ (৩২)কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহত গৃহবধূর নাম শিরিনা বেগম (৩০)। তাঁর বাবার নাম আবুল কাশেম। বাড়ি উপজেলার সাঁকোয়া গ্রামে।

ওই গৃহবধূর ভাই হাসেন আলী বাদী হয়ে মোহনপুর থানায় বোনের স্বামী মামুন রশীদ ও শাশুড়ি মাজেদা বেওয়াকে (৫৫) আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। মামুন একজন ট্রাকচালক।

স্বামীর নাম মামুন রশীদ (৩২)। তার বাবার নাম ইব্রাহিম হোসেন। তার বাড়ি।

মোহনপুর থানার পুলিশ ও স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, যৌতুকের জন্য স্ত্রী শিরিনার সঙ্গে প্রায়ই মামুনের ঝগড়া হতো। গতকাল সোমবার সন্ধ্যার পর মামুন তাঁদের ৮ বছরের মেয়েকে নানির কাছে ও ৪ বছরের ছেলেকে মামা জাহাঙ্গীরের বাড়িতে রেখে যান। মধ্যরাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। ঝগড়ার পর শিরিনাকে মারধর ও শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। এরপর তিনি বাড়ির বাইরে গিয়ে তাঁর স্ত্রী আত্মহত্যা করেছে বলে এলাকাবাসীকে খবর দেয়। এলাকাবাসী ছুটে এসে শিরিনাকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ প্রথমেই মামুনকে আটক করে।

মোহনপুর থানার ওসি মোস্তাক আহম্মেদ জানান, লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামুনকে গ্রেপ্তারের পর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। শাশুড়ি পলাতক মাজেদাকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। মামুন পুলিশের কাছে হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন