default-image

বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলায় যৌতুকের দাবিতে মারধরের পর স্ত্রীর মাথার চুল কেটে ন্যাড়া করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এই ঘটনা ঘটে। স্বামী মোরশেদুল ইসলামকে আজ শুক্রবার আটক করেছে পুলিশ।

নন্দীগ্রাম থানার পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কয়েক মাস আগে মোরশেদুলের সঙ্গে বিয়ে হয় নাটোরের সিংড়া উপজেলার নিজাম উদ্দিনের মেয়ে মার্জিয়া আকতারের। বিয়ের সময় দেড় লাখ টাকা যৌতুক দেওয়া হয় মোরশেদুলকে। কিন্তু এরপরও দুই লাখ টাকা এনে দেওয়ার জন্য মার্জিয়াকে চাপ দিয়ে আসছিলেন মোরশেদুল। যৌতুক দিতে রাজি না হওয়ায় বিভিন্ন সময় মার্জিয়াকে মারধর করতেন তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে শাশুড়ির সঙ্গে কথা-কাটাকাটি হয় মার্জিয়ার। দুপুরে বাড়ি ফিরে এ ঘটনা শুনে মার্জিয়াকে মারধর শুরু করেন মোরশেদুল। একপর্যায়ে কাঁচি দিয়ে তাঁর সব চুল কেটে মাথা ন্যাড়া করে ঘরে আটকে রাখেন। পরে শুক্রবার সকালে মার্জিয়ার মা মঞ্জুয়ারা বেগম স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় মেয়েকে উদ্ধার করেন।

নন্দীগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শওকত কবীর প্রথম আলোকে বলেন, মোরশেদুলকে আটক করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে যৌতুক ও নারী নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন