চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলায় অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৩) ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে গতকাল রোববার রাতে দামুড়হুদা মডেল থানায় দুজনের নামে মামলা করেন।

এই দুই আসামি হলেন দামুড়হুদা উপজেলার রাহেদ আলী (৩৫) ও সাদ্দাম হোসেন (৩৫)।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, ১৩ মার্চ শুক্রবার রাত আটটার দিকে ওই কিশোরী প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘরের বাইরে বের হয়। এ সময় আগে থেকে ওত পেতে থাকা দুই যুবক গামছা দিয়ে মেয়েটির মুখ বেঁধে তুলে নিয়ে যান। পাশের একটি মাঠে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয়। মেয়েটি অচেতন হয়ে পড়লে তাকে মাঠে ফেলে পালিয়ে যান তাঁরা। জ্ঞান ফিরলে রাত ১০টার দিকে মেয়েটি বাড়িতে ফিরে বাবা-মাকে সব খুলে বলে। মামলায় আরও অভিযোগ করা হয়, ঘটনার পরপরই কিশোরীর বাবা-মা ওই যুবকদের বাড়িতে গিয়ে ঘটনাটি জানান। তখন উল্টো তাদের গালাগালি করে বের করে দেওয়া হয়। ঘটনা জানাজানি হলে স্থানীয় প্রভাবশালীরা বিষয়টি আপস-মীমাংসার আশ্বাস দিয়ে অহেতুক কালক্ষেপণ করেন। কিন্তু কোনো অগ্রগতি না হওয়ায় ঘটনার দুদিন পর তাঁরা মামলা করেন।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য ইয়াসমিন খাতুন বলেন, যাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে চোরাচালানসহ বিভিন্ন অভিযোগে একাধিক মামলা আছে।

দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল খালেক আজ সোমবার বলেন, আসামিদের ধরতে অভিযান চলছে। আজ কিশোরীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে পাঠানো হবে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন