default-image

কক্সবাজারে পেকুয়া উপজেলায় রাস্তার পাশ থেকে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, তার বাম কান কাটা এবং চোখ দুটো ওপড়ানো। আজ শুক্রবার সকালে উপজেলার মগনামা ইউনিয়নের বিসমিল্লাহ সড়ক থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত ছাত্রীর নাম আয়েশা খানম (১৫)। সে মগনামার ফতেহ আলী মায়েরপাড়ার জামাল উদ্দিনের মেয়ে। আয়েশা মগনামা মাঝিরপাড়া শাহ রশিদিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল।

আয়েশার মা নাছিমা আকতার বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল আটটার দিকে বইপত্র নিয়ে মাদ্রাসায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয় আয়েশা। ছুটির পরও বাড়ি না ফেরায় তার খোঁজখবর নেন পরিবারের সদস্যরা। সম্ভাব্য সব জায়গায় খুঁজেও তার কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি। শুক্রবার সকালে স্থানীয় লোকজন সড়কের পাশে আয়েশার লাশ দেখতে পেয়ে বাড়িতে খবর দেন।

কে বা কারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে, তাৎক্ষণিকভাবে তিনি এ ব্যাপারে কোনো বক্তব্য দেননি।

মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোহাম্মদ নুর বলেন, আয়েশা বৃহস্পতিবার ক্লাসে উপস্থিত ছিল না।

পেকুয়া থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান বলেন, আয়েশাকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করা হয়েছে। তার বাম কান কেটে ফেলা হয়েছে এবং চোখ দুটো উপড়ে ফেলা হয়েছে। লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। পুলিশ ছাত্রীর পরিবার ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে হত্যা রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চালাচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন