লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার বশিকপুরে গত শনিবার রাতে দুর্বৃত্তদের হামলায় পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ইব্রাহিম হোসেন ওরফে রতন আহত হয়েছেন।
ইব্রাহিম হোসেনের বাড়ি বশিকপুর গ্রামে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, তার বিরুদ্ধে লক্ষ্মীপুর সদর থানাসহ বিভিন্ন থানায় হত্যা, ডাকাতি, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগে বেশ কয়েকটি মামলা আছে। ইব্রাহিম একসময় বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। সম্প্রতি তিনি আওয়ামী লীগে যোগ দেন।
ইব্রাহিমের বড় ভাই ইছমাইল হোসেন জানান, শনিবার রাত ১০টার দিকে ইব্রাহিম লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার বটতলী থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশাযোগে বাড়ি ফিরছিলেন। কাশিপুর এলাকায় দুর্বৃত্তরা তাঁকে বহনকারী অটোরিকশার গতিরোধ করে। পরে তারা ইব্রাহিমকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ও গুলি করে আহত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গ্রেপ্তার এড়াতে রাতেই ইব্রাহিমকে তাঁর স্বজনেরা সদর হাসপাতাল থেকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যান।
স্থানীয় সূত্রের ভাষ্যমতে, ইব্রাহিমের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী আছে। ওই বাহিনীর সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও চাঁদাবাজিতে বশিকপুর, কাশিপুর ও দত্তপাড়ার মানুষ অতিষ্ঠ। তাঁর বিরুদ্ধে দত্তপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান নূর হোসেন শামীম, কাশিপুরের যুবদল নেতা সেলিম, হানিফ মিয়াজির হাট এলাকার সেলিম ভুইয়া ও যুবলীগের নেতা রুম্মান হোসেন হত্যা মামলাসহ বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে।
সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) মো. নাসিম মিয়া জানান, ইব্রাহিম পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন