লক্ষ্মীপুরে শ্বশুরবাড়ি থেকে তরুণের মরদেহ উদ্ধার

বিজ্ঞাপন
default-image

লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলায় শ্বশুরবাড়ি থেকে মো. আল আমিন (১৯) নামের এক তরুণের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উপজেলার চরকাদিরা ইউনিয়নের বাদামতলী এলাকার আজাদ উদ্দিনের বাড়ি থেকে গতকাল শনিবার রাতে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

আল আমিনের শ্বশুরবাড়ির লোকজনের দাবি, বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। তবে তাঁর পরিবারের অভিযোগ, আল আমিনকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিতে চাইছেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

এ ঘটনায় কমলনগর থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। আজ রোববার লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে মরদেহ ময়নাতদন্ত করা হয়েছে।

আল আমিনের বড় ভাই মো. জসীম উদ্দিন বলেন, তিন বছর আগে পরিবারের অমতে চরকাদিরা ইউনিয়নের বাদামতলী এলাকার আজাদ উদ্দিনের মেয়ে নাজমা বেগমের সঙ্গে আল আমিনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে আল আমিন শ্বশুরবাড়িতেই থাকতেন। গতকাল সকালে শ্বশুরবাড়ির লোকেদের সঙ্গে তাঁর ঝগড়া হয়। পরে বিকেলে তাঁরা আল আমিনের মৃত্যুর সংবাদ পান। শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাঁকে হত্যা করে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দিচ্ছেন।

তবে এমন অভিযোগ অস্বীকার করে আল আমিনের স্ত্রী নাজমা প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল আল আমিনের সঙ্গে কারও কোনো ঝগড়া হয়নি। দুপুরে আল আমিন ঘরে একা শুয়ে ছিলেন। তখন ঘরে গিয়ে আল আমিনকে অসুস্থ দেখতে পান তিনি। আল আমিনের মুখ থেকে বিষের গন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল। হাসপাতালে নেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়ার সময়ই মারা যান তিনি। পরে রাত নয়টার দিকে পুলিশ এসে লাশ নিয়ে যায়।

কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইকবাল হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, আল আমিনের মুখে বিষের গন্ধ ছিল। তবে শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর বোঝা যাবে, এটি হত্যা না আত্মহত্যা। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন