লোহাগাড়ায় বিধবাকে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি সদস্য গ্রেপ্তার

বিজ্ঞাপন
default-image

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় এক বিধবাকে (৩৮) ধর্ষণের অভিযোগে ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) এক সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ বুধবার ভোরে চট্টগ্রাম নগরের চান্দগাঁও থানার সহযোগিতায় তাঁকে বহদ্দারহাট এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ ঘটনায় ওই নারী গতকাল মঙ্গলবার রাতে ইউপি সদস্যকে আসামি করে লোহাগাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন।

গ্রেপ্তার হওয়া ইউপি সদস্যর নাম মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন। তিনি লোহাগড়া উপজেলার পদুয়া ইউপির ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য। তাঁর বাড়ি পদুয়ার আলীপাড়া গ্রামে।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন চার-পাঁচ মাস আগে ভাতাসহ ইউনিয়ন পরিষদ থেকে অন্যান্য সুবিধা দেওয়ার কথা বলে ওই বিধবার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এর দুই মাস পর ওই ইউপি সদস্য বিধবাকে তাঁর বাড়িতে ডেকে নিয়ে কৌশলে ধর্ষণ করেন। পরে ইউপি সদস্য বিভিন্ন সময়ে ওই নারীকে উত্ত্যক্ত করাসহ তাঁর সন্তানদের ব্যাপারে এলাকায় কুৎসা রটিয়েছেন। এ ঘটনায় তখন ওই বিধবা এ বিষয়ে ইউপির চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে অভিযোগ করেছিলেন। গতকাল রাতে তিনি ওই ইউপি সদস্যর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছেন।

বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পদুয়া ইউপির চেয়ারম্যান মো. জহির উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন খারাপ প্রকৃতির লোক। তিনি নিজের দোষ আড়াল করার জন্য ওই বিধবা ও তাঁর সন্তানদের ব্যাপারে এলাকায় কুৎসা রটনা করতেন। এ ঘটনায় তাঁকে সাবধানও করা হয়েছিল।

এ বিষয়ে লোহাগাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. রাশেদুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল রাতে ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেনকে আসামি করে এক বিধবা ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছেন। মামলার পর চান্দগাঁও থানার সহযোগিতায় তাঁকে চট্টগ্রাম নগরের বহদ্দারহাট এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ আদালতের মাধ্যমে তাঁকে জেলা কারাগারে পাঠানো হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন