সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, রাজধানীর বনানীর ৪ নম্বর রোডে একটি ফ্ল্যাটে জিয়াউদ্দিনের অফিস রয়েছে। তাঁর সিরামিকের ব্যবসাসহ ২০টি শিল্পপ্রতিষ্ঠান রয়েছে বলে প্রচার চালাতেন। মূলত এসব প্রতিষ্ঠানকে প্রতারণার কাজে ব্যবহার করতেন জিয়াউদ্দিন। তাঁর এই শিল্পপ্রতিষ্ঠানের একটি ফোশান গ্রুপ। তিনি এই গ্রুপের চেয়ারম্যান।

জিয়াউদ্দিনের বাড়ি বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলায়। প্রতারণার টাকায় তিনি দামি ল্যান্ড ক্রুজার গাড়িতে চড়তেন। তাঁর হাতে থাকত রোলেক্স ব্র্যান্ডের ঘড়ি। দুবাইয়েও তাঁর বাড়ি রয়েছে বলে তিনি প্রচার করতেন।