default-image

রাজধানীর উত্তরা এলাকায় রিফাত (৮) নামে এক শিশু হত্যার বিচার দাবিতে বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী রাজলক্ষ্মী কমপ্লেক্সের সামনে মহাসড়কে অবস্থান নিয়েছে। এর ফলে বিমানবন্দর-টঙ্গী মহাসড়কের দুই পাশে তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়েছে।

default-image

বিকেল চারটার দিকে বিক্ষোভকারীরা কফিন নিয়ে আজমপুর পদচারী সেতুর নিচে অবস্থান করছিল।

default-image

বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দক্ষিণখান এলাকায় মুনসী মার্কেট এলাকায় রিফাতের বাসা। তার বাবার নাম আবদুর রশিদ। গত সোমবার বিকেলে পাশের বাড়ির ছাদে শিশুটি ঘুড়ি উড়াচ্ছিল। এ সময় ঘুড়িটি ছিঁড়ে রনজিৎ নামে অন্য আরেকটি বাড়ির মালিকের গায়ের ওপর পড়ে যায়। কিছু সময় পর ঘুড়ি ফেরত দেওয়ার কথা বলে রিফাতকে ডেকে নেয় ওই বাড়ির মালিক। এর পর রিফাতকে বাড়ির ভেতর গলাটিপে হত্যা করে লাশ পানির ট্যাংকে ফেলে দেয় সে। রিফাতের খোঁজ না পেয়ে দক্ষিণখান থানায় অভিযোগ করতে যায় এলাকাবাসী। কিন্তু পুলিশের পক্ষ থেকে শিশুটিকে উদ্ধারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। পরে আজ বুধবার সকালে বাড়িটির তত্ত্বাবধায়ক ট্যাংক থেকে পানি তুলতে গিয়ে রিফাতের লাশ দেখতে পান। পরে এলাকাবাসী ও পুলিশের সহায়তায় লাশ উদ্ধার করা হয়। কিন্তু মামলা করতে গেলে থানা-পুলিশ মামলা নেয়নি। মামলা না নেওয়া প্রতিবাদে আজ সকাল ১০টা বিমানবন্দর-টঙ্গী মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে এলাকাবাসী।

default-image

পুলিশের দক্ষিণখান জোনের অতিরিক্ত উপকমিশনার নূরুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, এ ঘটনায় গতকাল রাতে দক্ষিণখান থানায় একটি মামলা হয়েছে। তবে যে বাড়িতে রিফাতের লাশ পাওয়া গেছে, সেই বাড়ির মালিক পলাতক রয়েছেন। তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। তবে এলাকাবাসী তাৎক্ষণিক বিচার দাবি করে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন