শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলা সদরের কলাকান্দা এলাকায় মা ও শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। আজ রোববার বেলা তিনটার দিকে কলাকান্দার বাসা থেকে মা সূর্যমণি আক্তার ও তাঁর শিশুপুত্র সীমান্তর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সূর্যমণি কলাকান্দা গ্রামের মোটরসাইকেলের মিস্ত্রি বিপ্লব হোসেনের স্ত্রী। ঘটনার পর থেকে বিপ্লব পলাতক রয়েছেন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তিন বছর আগে সূর্যমণির সঙ্গে বিপ্লব হোসেনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে তাঁদের মধ্যে কলহ চলে আসছিল। আজ বেলা আড়াইটার দিকে বিপ্লবের ছোট ভাই শামীম পুকুরে মাছ ধরে বাসায় ফিরে দেখেন, বিপ্লবের ঘরের ভেতর তাঁর ভাবি সূর্যমণি গলায় ফাঁস দিয়ে ঝুলে আছেন। মাটিতে পড়ে আছে ভাতিজার মরদেহ। তাঁর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে মা ও শিশুপুত্রের লাশ দেখতে পান। খবর পেয়ে বেলা তিনটার দিকে পুলিশ এসে লাশ দুটি উদ্ধার করে। সন্ধ্যা ছয়টার দিকে লাশ দুটি শ্রীবরদী থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

পুলিশ জানায়, সুরতহাল প্রতিবেদনে সূর্যমণির গলায় আঘাতের কালো দাগ দেখা গেছে। এ ছাড়া সীমান্তর গলায় ও পিঠে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের একাধিক চিহ্ন রয়েছে।

শেরপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) মো. শাহজাহান মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জের ধরে সূর্যমণি তাঁর সন্তানকে হত্যা করে নিজেও গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনার পর থেকে সূর্যমণির স্বামী বিপ্লব পলাতক আছেন। তাঁকে আটকের চেষ্টা চলছে। ঘটনার তদন্ত চলছে। শ্রীবরদী থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
আগামীকাল সোমবার ময়নাতদন্তের জন্য লাশ দুটি শেরপুর জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে বলে জানান মো. শাহজাহান মিয়া।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন