default-image

চট্টগ্রামে আমদানি করা ৭০ হাজার কেজি (৭০ টন) চাল জব্দ করেছে পুলিশ। আজ বুধবার ভোরে নগরের পাহাড়তলী চাল বাজারের মেসার্স মাহী ট্রেডার্স নামের একটি আড়ত থেকে এগুলো জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় আড়তদার আবদুল বাহার মিয়াকে (৪৫) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার বাহার মিয়া স্বীকার করেছেন, তিনি সরকারি বস্তা পাল্টে তাঁদের নিজস্ব বস্তায় চাল ভরে বাজারে বিক্রি করতেন।

নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপকমিশনার পশ্চিম ফারুক উল হক আজ দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, ভারত থেকে আমদানি করা চট্টগ্রাম বন্দর থেকে খালাস হওয়া কিছু সরকারি চাল পাহাড়তলী চাল বাজারে আনা হবে, এমন তথ্য পেয়ে পুলিশ অভিযান চালায়। এ সময় মাহী ট্রেডার্সের সামনে দাঁড়ানো একটি ট্রাকে তল্লাশি চালিয়ে ২৬০ বস্তা চাল পাওয়া যায়। বস্তার গায়ে ‘বাংলাদেশ সরকারের খাদ্য মন্ত্রণালয়ের’ নাম লেখা ছিল। ট্রাকে চালগুলো দেখার পর তাঁদের চালানপত্র দেখাতে এলএসডি গুদামে নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেগুলো সেখানে না নিয়ে পাহাড়তলী চালবাজারে নিয়ে আসা হয়েছে। পরে আড়তে অভিযান চালিয়ে আরও ১ হাজার ১৪০ বস্তা চাল উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার চালের পরিমাণ ৭০ হাজার কেজি।

বিজ্ঞাপন

গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (বন্দর) এ এ এম হুমায়ুন কবির বলেন, চালগুলো নোয়াখালী চরভাটা এলএসডি গুদামে না নিয়ে চট্টগ্রামে কেন আনা হলো, এ বিষয়ে আড়তদার আবদুল বাহারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। জিজ্ঞাসাবাদে বাহার জানিয়েছেন, সরকারি এসব চাল সরকারি গুদামে না নিয়ে তাঁরা মজুদ করেন। পরে খাদ্য মন্ত্রণালয়ে লেখা বস্তা পাল্টে নিজেদের নামে প্যাকেটজাত করে বাজারে বিক্রি করে থাকেন। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেছে।

জানতে চাইলে নোয়াখালী চরভাটা এলএসডি গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আরিফ উদ্দিন আজ দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, ‘বন্দর থেকে চাল সরাসরি আমার গুদামে আসার কথা। ওখানে কীভাবে গেল জানি না। বিষয়টি খোঁজ নিচ্ছি।’

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন