বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (বন্দর) এ এ এম হুমায়ুন কবির বলেন, চালগুলো নোয়াখালী চরভাটা এলএসডি গুদামে না নিয়ে চট্টগ্রামে কেন আনা হলো, এ বিষয়ে আড়তদার আবদুল বাহারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। জিজ্ঞাসাবাদে বাহার জানিয়েছেন, সরকারি এসব চাল সরকারি গুদামে না নিয়ে তাঁরা মজুদ করেন। পরে খাদ্য মন্ত্রণালয়ে লেখা বস্তা পাল্টে নিজেদের নামে প্যাকেটজাত করে বাজারে বিক্রি করে থাকেন। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেছে।

জানতে চাইলে নোয়াখালী চরভাটা এলএসডি গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আরিফ উদ্দিন আজ দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, ‘বন্দর থেকে চাল সরাসরি আমার গুদামে আসার কথা। ওখানে কীভাবে গেল জানি না। বিষয়টি খোঁজ নিচ্ছি।’

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন