সাংবাদিক পেটানোয় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

বিজ্ঞাপন

দৈনিক মানবকণ্ঠের জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি সোহাইল মিয়াকে মারধর করায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক আতাউর রহমানকে বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। আজ বুধবার দুপুরে সোহাইল মিয়াকে মারধর করে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর নূর মোহাম্মাদ সাংবাদিকদের বলেন, প্রাথমিক তথ্যের ভিত্তিতে আতাউরকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, আজ দুপুর একটার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক আতাউর রহমান মুঠোফোনে সোহাইলকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে আসতে বলেন ৷ সেখানে আসার পর আতাউর ও তাঁর বন্ধুরা সোহাইলকে মারধর করেন ৷ পরে সোহাইলের বন্ধুরা তাঁকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ ইনস্টিটিউট হাসপাতালে নিয়ে যান। তাঁকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে ৷ এ ঘটনায় সোহাইলের সহপাঠীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন ৷ ঘটনার তদন্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর নূর মোহাম্মাদকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে ৷

উল্লেখ্য, আতাউর ‘জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পটুয়াখালী জেলা ছাত্র কল্যাণ পরিষদের’ সভাপতি, সোহাইল এই পরিষদেরই সাধারণ সম্পাদক। সোহাইল প্রথম আলোকে বলেন, ‘গত সোমবার পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের এক নেতাকে সদরঘাট টার্মিনালে এগিয়ে দেওয়ার কারণে আতাউর আমার ওপর হামলা করেছে ৷ কারণ, আতাউর ওই নেতাকে পছন্দ করেন না।’

এ ঘটনা সম্বন্ধে জানার জন্য আতাউর রহমানের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। তবে তাঁর মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়। বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম বলেন, আতাউরের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন