বঙ্গোপসাগরে সাতটি মাছ ধরা ট্রলারে ডাকাতি হয়েছে। ডাকাতেরা এসব ট্রলার থেকে জাল ও মাছ লুট করে নিয়ে গেছে। এ সময় ডাকাতদের ছররা গুলিতে আট জেলে আহত হন। বরগুনার পাথরঘাটা থেকে প্রায় ১৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরের সোনারচরসহ আশপাশ এলাকায় গত রোববার রাত ১০টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ডাকাতির এসব ঘটনা ঘটে।
গুলিবিদ্ধ জেলেদের বরাত দিয়ে এফবি শাহ মহসিন আওলিয়া ট্রলারের মালিক মো. আলম মোল্লা গতকাল সোমবার দুপুরে প্রথম আলোকে এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
জেলা ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, গুলিবিদ্ধ জেলেরা হলেন নূরুল ইসলাম, সাইদুল হাওলাদার, কবির হাওলাদার, লিটন হাওলাদার, লিটন সিকদার, মাসুদ খান, ফোরকান ঘরামী ও মো. খোকন মিয়া। তাঁরা এফবি শাহ মহসিন আওলিয়া-১, ৩ ও ৪ ট্রলারের জেলে। তাঁদের বাড়ি বরগুনা সদর উপজেলার পাতাকাটা, সোনাতলা, গাজীমাহামুদ, নিশানবাড়িয়া ও পাথরঘাটা উপজেলার চরলাঠিমারা গ্রামে। জেলেদের হাত, পা, পেট, মুখমণ্ডল ও মাথায় গুলি লেগেছে। তাঁদের প্রথমে গতকাল বেলা ১১টার দিকে পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
গতকাল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেখা যায়, বেশ কয়েকজন চিকিৎসক গুলিবিদ্ধ জেলেদের এক এক করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিচ্ছেন। এ সময় গুলিবিদ্ধ লিটন সিকদার জানান, তাঁর মাথায় চারটি ও গলায় পাঁচটি গুলি বিদ্ধ হয়েছে। এ ছাড়া গুলি লেগে একটি দাঁত পড়ে গেছে। কবির হাওলাদার নামের আরেকজন জানান, তাঁর মাথায় আটটি গুলিসহ ডান হাতে, পেটে ও শরীরে অন্তত ২২টি গুলি বিদ্ধ হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন