বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, গত বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে কক্সবাজার থেকে ছেড়ে আসা ফার্নিচারবোঝাই একটি মিনিট্রাকে আইস পাচার করা হচ্ছে। পরে সাতকানিয়া থানার পুলিশ চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের তেমুহানী এলাকায় একটি গ্যাস পাম্পের সামনে তল্লাশিচৌকি বসায়। দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে ফার্নিচারবোঝাই একটি মিনিট্রাক আসতে দেখে থামার সংকেত দেয় পুলিশ।

এ সময় ওই ট্রাকের চালক ফয়সাল আহমদ গাড়ি থেকে নেমে মুঠোফোনে কথা বলার ভান করে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ ধাওয়া করে তাঁকে আটক করে। এরপর তাঁর সহকারী রোহিঙ্গা তরুণ জাহেদ আলমকেও গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তাঁদের দেওয়া তথ্যমতে ট্রাকের এয়ারকুলারের ভেতর থেকে দুটি পলিথিনের প্যাকেট থেকে দুই কেজি আইস উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া ওই মাদকের বাজারমূল্য প্রায় ১০ কোটি টাকা বলে দাবি করছে পুলিশ।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জাকারিয়া রহমান বলেন, দুজনকে আইসসহ আটকের পর মাদক আইনে মামলা হয়েছে। ওই মামলায় তাঁদের গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এর মধ্যে ট্রাকচালক ফয়সাল আহমদ মাদক পাচারচক্রের সক্রিয় সদস্য। তাঁর বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে আরও তিনটি মামলা আছে। গ্রেপ্তার দুজনকে আজ আদালতে তোলা হবে।

অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন