default-image

নাফ নদী দিয়ে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার চালান পাচারকালে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যদের তল্লাশির মুখে পড়েন ইয়াবা পাচারকারীরা। এ সময় তাঁরা তিনটি বস্তা ফেলে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে পালিয়ে যান। বিজিবির সদস্যরা তিনটি বস্তার ভেতর থেকে ২ লাখ ২৬ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করে। তবে এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের দমদমিয়া নেচার পার্ক পয়েন্টের নাফ নদীতে শনিবার রাত আটটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান। তিনি বলেন, শনিবার রাতে বিজিবির একটি দল ইয়াবার চালান আসার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দমদমিয়ার নেচার পার্ক পয়েন্টে নাফ নদীতে অভিযান চালায়। কিছুক্ষণ পর ২টি নৌকা নিয়ে ৪ থেকে ৫ জন নাফ নদীর শূন্যরেখা অতিক্রম করলে তাদের থামার সংকেত দেওয়া হয়। এ সময় মাদক পাচারকারীরা বিজিবিকে লক্ষ্য করে কয়েকটি গুলি চালায়। বিজিবির সদস্যরা আত্মরক্ষার্থে ১০টি গুলি চালালে মাদক পাচারকারীরা নদীতে ঝাঁপ দেন। পরে রাত ৯টা পর্যন্ত বিজিবি নাফ নদীতে স্পিডবোটে টহল চালিয়ে কাউকে আটক করতে পারেনি। তবে পাচারকারীদের ফেলে যাওয়া নৌকা তল্লাশি করে ৩টি বস্তা উদ্ধার করা হয়। সেগুলো থেকে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা পাওয়া যায়।

বিজিবির এই কর্মকর্তা বলেন, উদ্ধার করা এসব ইয়াবা পরবর্তীতে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তির উপস্থিতিতে ধ্বংস করার জন্য ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0