মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে ডবলছড়া চা-বাগানে গত সোমবার স্ত্রী লক্ষ্মী কূর্মীকে (১৮) হত্যা করে দুদিন পর স্বামী রাজু কূর্মী (২২) আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁকে গ্রেপ্তার করেছে।
উপজেলার শমশেরনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদ জানান, নয় মাস আগে ডবলছড়া চা-বাগানের শ্রমিক রাজুর সঙ্গে লংলা চা-বাগানের লক্ষ্মীর বিয়ে হয়। কিছুদিন পর থেকে তাঁদের মধ্যে কলহ শুরু হয়। গত সোমবার লক্ষ্মীর বড় ভাই বোনকে দেখতে এলে তাঁর উপস্থিতিতে একপর্যায়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। সেদিন ভাই ফিরে যাওয়ার পর থেকে লক্ষ্মীর আর খোঁজ পাওয়া যায়নি। বুধবার বেলা তিনটায় রাজু চিৎকার দিয়ে বলেন, তাঁর স্ত্রী আত্মহত্যা করেছেন। সন্ধ্যার পর তিনি নিজের গলায় দা দিয়ে কোপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলে তাঁকে উদ্ধার করে প্রথমে ক্যামেলিয়া ডানকান হাসপাতালে এবং পরে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
লক্ষ্মীর বাবা সত্য নারায়ণ কূর্মী অভিযোগ করেন, আগেও রাজু লক্ষ্মীকে বালিশচাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছিলেন। সোমবার কোনো একসময় নির্যাতন করে লক্ষ্মীকে হত্যার পর লাশটি ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়। বুধবার লাশের গন্ধ বের হলে রাজু ঘরের তালা খুলে চিৎকার দিয়ে বলতে থাকেন, লক্ষ্মী বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন।
শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সহকারী পরিদর্শক মতিউর রহমান বলেন, রাজু কূর্মী গ্রেপ্তার অবস্থায় চিকিৎসাধীন। গতকাল বৃহস্পতিবার জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. আশরাফুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিকভাবে বোঝা যাচ্ছে, স্বামী স্ত্রীকে হত্যা করে নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন। তদন্ত শেষে দেখা যাবে এর সঙ্গে অন্য কেউ জড়িত আছে কি না।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন