হাঁসের সঙ্গে এ কেমন শত্রুতা

বিজ্ঞাপন
default-image

নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নারায়ণপুর গ্রামে নন্দকুঁজা নদীকে ঘিরে হাঁসের খামার গড়েছিলেন কাজী আতহার হোসন। হাঁসের সংখ্যা ১২৮। এসব হাঁসের ডিম বিক্রির টাকায় চলত তাঁর সংসার। কিন্তু কে বা কারা বিষ খাইয়ে খামারের হাঁসগুলো মেরে ফেলেছে।

এ ঘটনায় প্রতিবেশী আয়নাল হোসেন ও ইমরান হোসেন নামের দুজনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ জমা দিয়েছেন খামারের মালিক কাজী আতহার হোসেন। তবে দুজনই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাঁদের দাবি, হয়রানি করতে তাঁদের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আনা হয়েছে।

আতহার হোসেন অভিযোগ করেন, গতকাল শুক্রবার দুপুরে তাঁর হাঁসের দল আয়নাল হোসেন ও ইমরান হোসেনের নদী–সংলগ্ন বাঁশবাগানে আশ্রয় নিয়েছিল। দুপুরের খাবার খেয়ে ফিরে এসে তিনি দেখেন, হাঁসগুলো সেখানে নেই। মরা হাঁসগুলো ভাসছে নন্দকুঁজা নদীর পানিতে। তিনি বলেন, ঋণ করে হাঁসের খামারটি করেছিলেন। তিনি দিনে ১ হাজার ২০০ টাকার ডিম বিক্রি করতেন। এতে স্বচ্ছলতা এসেছিল তাঁর পরিবারে। তাঁর সব শেষ।

অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোজাহারুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, অভিযোগটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন