default-image

সাংসদ নিজাম হাজারীকে ভবিষ্যতে কারাবিধি সুনির্দিষ্টভাবে অনুসরণ করে কারাগার পরিদর্শনের জন্য ‘পরামর্শ’ দিতে জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে নির্দেশ দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। অন্যদিকে, ফেনী কারাগারের জ্যেষ্ঠ সুপার রফিকুল কাদেরকে ভবিষ্যতে কারাবিধি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে অনুসরণ করতে ‘সতর্ক’ করেছে মন্ত্রণালয়।

আজ মঙ্গলবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগ থেকে পাঠানো দুটি পৃথক চিঠিতে এসব নির্দেশনা দেওয়া হয়।

জেলা ম্যাজিস্ট্রেটকে পাঠানো চিঠিতে জানানো হয়, সাংসদ নিজাম হাজারী বেসরকারি কারা পরিদর্শক না হওয়া সত্ত্বেও গত ২৩ আগস্ট, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ১৩ এপ্রিল ও ৫ মে অননুমোদিতভাবে কারাগারে প্রবেশ করে কারাবিধি লঙ্ঘন করেছেন। তাই তাঁকে নিয়ম মেনে কারাগার পরিদর্শন করতে বলা হয়। জেল সুপারকে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, ফেনী জেলা কারাগারের বিচারাধীন মামলার আসামি এম আজহারুল হক ও সাখাওয়াত হোসেন ভূঁইয়াকে সাধারণ ওয়ার্ডের পরিবর্তে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামিদের জন্য নির্ধারিত সেলে রাখা এবং স্থানীয় সাংসদ নিজাম হাজারীকে অননুমোদিতভাবে কারাগারে প্রবেশে সহায়তা করে কারাবিধি লঙ্ঘন করেছেন। সে জন্য কারাবিধি মেনে চলতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গতকাল সোমবার ‘নিয়ম ভেঙে প্রায়ই জেলে ঢোকেন সাংসদ হাজারী’ শিরোনামে প্রথম আলোতে সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, সাংসদ নিজাম হাজারী আইন লঙ্ঘন করে নিয়মিত কারাগারে যেতেন, এখনো যান। সাংসদকে কারাগারের ভেতরে নিয়ে যেতেন জেল সুপার।

যুবলীগ নেতা সাখাওয়াত হোসেন তদন্ত কমিটিকে বলেছেন, সেলে গিয়ে তাঁকে হুমকি দেন সাংসদের দেহরক্ষী ও ইউপির চেয়ারম্যান হারুন মজুমদার।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0