ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর সদরের স্কুলছাত্র মো. ফয়সাল আহাম্মেদ নিখোঁজের ১০ দিন পরও সন্ধান মেলেনি। এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার ফয়সালের নানি ফাতেমা বেগম থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন।
ফয়সালের পরিবার ও থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ফয়সাল বাঞ্ছারামপুর এসএম পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ও উপজেলার মনাইখালী গ্রামের কৃষক নাজিম উদ্দিন ও জর্ডানপ্রবাসী জাহানারা বেগমের ছেলে।
গত ১৩ ফেব্রুয়ারি সকালে সে মনাইখালীর নিজ বাড়ি থেকে উপজেলা সদরে যাওয়ার কথা বলে বের হয়। এরপর আর সে বাড়ি ফেরেনি। বাড়ি থেকে বের হয়ে যাওয়ার সময় সে জিনসের প্যান্ট ও চেক শার্ট পরা ছিল।
ফাতেমা বেগম বলেন, ‘ফয়সালের মা বিদেশ গেছে ছেলের লাইগা। আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে খোঁজ করেছি, কোথাও সে যায়নি। বাঞ্ছারামপুর সদরের হোটেলের এক বাবুর্চির লগে ওর খাতির (সখ্য) আছিল। বাড়িতে এমন কোনো কিছু হয় নাই, যার লাইগা আমার নাতি বাড়ি থাইকা বাইর অইয়া যাইতে পারে।
আমরা বুঝতে পারতাছি না কী অইল? আমরার কাছে মনে অইতাছে, আমার নাতিরে ফুসলাইয়া কেউ লইয়া গেছে। ফয়সালের খবর শুইনা হের মা বিদেশেই অসুস্থ হয়ে পড়ছে।’
এ ব্যাপারে বাঞ্ছারামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অংশু কুমার দেব জানান, ফয়সালের নিখোঁজ হওয়া বিষয়ে তার ছবি ও তথ্য বিভিন্ন থানায় পাঠানো হচ্ছে। সম্ভাব্য কয়েকটি স্থানে তার খোঁজ নেওয়া হচ্ছে। একটি রেস্টুরেন্টের বাবুর্চির সঙ্গে ফয়সালের সখ্যের কথা শুনেছি, বাবুর্চির খোঁজও নেওয়া হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
অপরাধ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন