৯৯৯ নম্বরে ফোন করে ছিনতাই হওয়া ডিম উদ্ধার

বিজ্ঞাপন
default-image

জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন পেয়ে ছিনতাই হওয়া ২২ হাজার ৫৩০টি মুরগির ডিম উদ্ধার করেছে পুলিশ। কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের লাগোয়া তাহমিদ টাওয়ারের নিচতলা থেকে ডিমগুলো উদ্ধার হয়।

পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে। ছিনতাই হওয়া ট্রাকও উদ্ধার করে।

আজ রোববার সকালে কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই কথা বলেন জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম। এ সময় কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন ও তানভীর সালেহীন ইমন উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বলেন, গত শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় গাজীপুরের কাপাসিয়া ডায়মন্ড এগ লিমিটেড কোম্পানীর ডিমবাহী একটি ট্রাক চট্টগ্রামের পতেঙ্গা যাচ্ছিল। ট্রাকটি কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার চৌদ্দগ্রাম পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের কাছাকাছি আসামাত্র একদল ছিনতাইকারী ছিনতাই করে। এরপর পৌরসভার তাহমিদ টাওয়ারের নিচতলায় ডিম আনলোড করা হয়। এই ঘটনায় গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে ট্রাক চালক। পরে চৌদ্দগ্রাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) ত্রিনাথ সাহার নেতৃত্বে একটি দল তাৎক্ষণিক তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে তাহমিদ টাওয়ারে গিয়ে কিরণ মজুমদার ও আবদুস সালাম ওরফে শাহীনকে আটক করে। একই সঙ্গে ৭৫১টি কেসে থাকা ২২ হাজার ৫৩০টি ডিম উদ্ধার করে। পরে তাঁদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক চৌদ্দগ্রাম আইডিয়াল পেট্রল পাম্প থেকে ট্রাক উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় আরও তিনজনকে আটক করা হয়। এদের বিরুদ্ধে চৌদ্দগ্রাম থানায় মামলা হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কিংশ্রীপুর গ্রামের আবদুল কাদের (৫৫), সোনাপুর গ্রামের কিরণ মজুমদার (৩৬), ফেনীর উকিলপাড়া এলাকার আবদুল হান্নান ওরফে শাওন (৩০), বান্দরবানের লামা উপজেলার হরিণজিরী গ্রামের মো. সোহেল (২১) ও কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের ফুলের নাউরি গ্রামের আবদুস সালাম প্রকাশ শাহিন(৩৮)।

ট্রাকের মালিক মো. সাইফুর রহমান বলেন,‘ জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন করে আমি ট্রাকের সন্ধান পেয়েছি। এই সেবার কারণে তাৎক্ষণিক আমার ১৫ লাখ টাকার ট্রাক পাওয়া গেছে। ’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন