default-image

তৃতীয় ধাপে আজ শনিবার মুন্সিগঞ্জ পৌরসভায় ভোট গ্রহণ চলছে। কেন্দ্রগুলোয় আজ সকাল থেকেই ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতি রয়েছে। তবে এসব কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের এজেন্ট থাকলেও অধিকাংশ কেন্দ্রে ছিল না ধানের শীষের এজেন্ট।

আজ সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত মুন্সিগঞ্জ পৌরসভা ৭ নম্বর ওয়ার্ডের পিটিআই পরীক্ষণ বিদ্যালয় কেন্দ্রের সাতটি কক্ষ ঘুরে দেখা যায়, ভোটকক্ষের বাইরে ভোটারদের বেশ ভিড়। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দেওয়ার অপেক্ষায় তাঁরা। প্রতিটি কক্ষে নৌকার এজেন্টে থাকলেও ছিল না ধানের শীষ প্রতীকের এজেন্ট। একই অবস্থা ছিল ১ নম্বর ওয়ার্ডের সরকারি হরগঙ্গা কলেজ কেন্দ্র। সেখানকার পাঁচটি কক্ষ ঘুরে নৌকা ছাড়া অন্য কারও এজেন্ট পাওয়া যায়নি।

বিজ্ঞাপন

ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী শহীদুল ইসলাম জানান, তাঁর নিজ এলাকার ভোটকেন্দ্র যোগিনীঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তাঁদের এজেন্ট রয়েছে। তবে কয়েকটি কেন্দ্রে তাঁর এজেন্ট নেই। এজেন্ট না থাকার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের কিছুদিন আগে মেয়র পদের স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সাহেবের ওপর হামলা হয়। এ ঘটনার পর থেকে মানুষের মনে ভীতি সৃষ্টি হয়। আমরা প্রতিটি কেন্দ্রের জন্য এজেন্ট নির্দিষ্ট করেছিলাম। হয়তো কোনো এজেন্ট ভয়ে কেন্দ্রে পৌঁছায়নি।’

পিটিআই পরীক্ষণ বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তার আল আমিন হাওলাদার জানান, সকাল থেকেই তিনি এজেন্টদের ফরম সংগ্রহ করছিলেন। এখানে নৌকা প্রতীকের এজেন্টরা এলেও বিএনপি প্রার্থীর এজেন্টরা আসেননি। তিনি আরও বলেন, যদি প্রার্থীদের এজেন্ট আসত’ তাহলে তাঁদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হতো। কিন্তু কারও এজেন্ট না এলে তাঁদের কিছুই করার নেই।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন