default-image

সিরাজগঞ্জ পৌর শহরে অপহরণের ১২ ঘণ্টা পর উদ্ধার হওয়া অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রী বাড়িতে ফিরেই আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শুক্রবার বিকেলে শহরের মাহমুদপুর মহল্লায় নিজ বাড়ি থেকে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ ও নিহত ছাত্রীর পরিবার জানায়, গত দুই বছর ওই কিশোরীকে একই মহল্লার এক বখাটে কিশোর (১৬) বিভিন্ন সময়ে উত্ত্যক্ত করত। এ ব্যাপারে তার অভিভাবকদের কাছে বারবার অভিযোগ করা হলেও কোনো লাভ হয়নি। গত বুধবার বখাটেদের অত্যাচারে বাধ্য হয়ে ওই কিশোরীর সঙ্গে এক আত্মীয়ের ছেলের বাগদান অনুষ্ঠান আয়োজন করে পরিবার। এ সময় উত্ত্যক্তকারী বখাটে কিশোর পুলিশকে ফোন করে বাল্যবিবাহের কথা বলে বাগদান অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেয়। এর পরদিন বৃহস্পতিবার বিকেলে বাসার সামনে থেকে ওই কিশোরসহ মহল্লার আরও তিনজন কিশোর ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে তাৎক্ষণিক থানায় অভিযোগ করলে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পুলিশ ওই বখাটে দলের অপর একজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে কিশোরীকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। বাসায় আসার পরই ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয় ওই কিশোরী। এরপর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সে।

পরে বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে মহল্লার এক ব্যক্তি ওই কিশোরীকে থানায় পৌঁছে দেন। গতকাল দুপুর ১২টার দিকে কিশোরীকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। বাসায় আসার পরই ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয় ওই কিশোরী। এরপর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সে। পরে স্বজনেরা দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে তার মরদেহ ফ্যানের সঙ্গে ঝুলতে দেখে পুলিশকে খবর দেন।

কিশোরীর লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী প্রথম আলোকে জানান, মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে কিশোরীর বাবা শরীফ শেখ বাদী হয়ে গতকাল সন্ধ্যায় থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা করেছেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন