default-image

সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলায় দশম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে (১৫) অপ্রাপ্তবয়স্ক এক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর (২০) বিয়ের আয়োজন পণ্ড করে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। একই সঙ্গে বিয়ের আয়োজন করায় বর ও কনের বাবাকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।

রোববার রাত ৯টায় উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের একটি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আনিসুর রহমান।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার রাতে ওই স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই ছাত্রীর বাড়িতে বিয়ের আয়োজন চলছিল। বর বেলকুচি পৌরসভার চালা এলাকার বাসিন্দা এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী (২০)। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিয়েবাড়িতে উপস্থিত হন ইউএনও আনিসুর রহমান। বর ও কনে উভয়ই অপ্রাপ্তবয়স্ক হওয়ায় বাল্যবিবাহের আয়োজন বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ সময় বাল্যবিবাহ আয়োজনের দায়ে বরের বাবা ও কনের বাবাকে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে বোঝানো হলে তাঁরা তাঁদের ভুল বুঝতে পারেন। তাঁদের ছেলেমেয়ে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেন না বলে মুচলেকাও দেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালতকে সহায়তা করেন পৌর কাউন্সিলর মো. আক্তার হোসেন, পেশকার মো. হাফিজ উদ্দিন ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা।

ইউএনও মো. আনিসুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, বাল্যবিবাহমুক্ত বেলকুচি উপজেলা গড়ে তোলার জন্য কাজ করা হচ্ছে। এ জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0