বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলার নথি সূত্রে জানা যায়, সৈয়দ দলিল উদ্দিন পুলিশ বাহিনী থেকে অবসর নেওয়ার পর থেকে গ্রামের মাঠে গভীর নলকূপ বসিয়ে ধান চাষ করে আসছিলেন। রাতে তিনি নলকূপ পাহারা দিতেন। ২০০০ সালের ৩১ অক্টোবর রাতে তিনি নলকূপের ঘরেই ছিলেন। গভীর রাতে কয়েকজন যুবক মাঠে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমার চুরি করতে আসেন। এ সময় তিনি বিষয়টি টের পেয়ে বাধা দিলে ওই যুবকেরা তাঁকে কুপিয়ে হত্যা করে চলে যান।

এ ঘটনায় ২০০০ সালের ১ নভেম্বর নিহত দলিল উদ্দিনের ছেলে হাবিবুর রহমান ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে ২০০৫ সালে ১০ জনের নামে অভিযোগপত্র জমা দেয়। এরপর আদালত মামলাটির দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে এই রায় দেন।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মো. ইউসুফ আলী বলেন, রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত দুজন আদালতেই উপস্থিত ছিলেন। পরে দুজনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন