নিহত শিশুর দাদা অমর মল্লিক বলেন, এত দিন বাড়ির উঠানেও পানি ছিল। তবে গত কয়েক দিনে পানি কিছুটা কমেছে। বাড়ির পাশের একটি পুকুর ও এর চারপাশে এখনো পানি জমে আছে। গতকাল বিকেলে আর্য উঠানে খেলছিল। এ সময় সে বাড়ির বাইরে খেলতে যায়। কিছুক্ষণ পর পুকুরের পাশে জমে থাকা পানিতে ভাসমান অবস্থায় আর্যকে উদ্ধার করা হয়।

পরে ওই শিশুর স্বজনেরা তাকে তৎক্ষণাৎ অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানকার জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আর্যকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সাদিয়া জাহান বলেন, সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে শিশুটিকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনা হয়। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন