বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ ঘটনার পরের দিন ভান্ডারিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল হক বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে মন্টু কবিরাজের বিরুদ্ধে মামলা করেন। একই বছরের ১৪ জুলাই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ভান্ডারিয়া থানার এসআই নূরুল আমিন সিকদার আসামির নামে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। সাতজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বিচারক আসামির অনুপস্থিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

সরকারপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন সহকারী সরকারি কৌঁসুলি (এপিপি) মো. জহুরুল ইসলাম। তিনি বলেন, আদালত অবৈধ অস্ত্র রাখার দায়ে ১০ বছর ও অবৈধ গুলি রাখায় দায়ে ৭ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন। গ্রেপ্তারের পর থেকে তাঁর সাজা কার্যকর হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন