default-image

অস্ত্র মামলায় জামিন পেয়েছেন টাঙ্গাইল পৌরসভার সাবেক মেয়র সহিদুর রহমান খান। আজ রোববার টাঙ্গাইলের দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক তাঁর জামিন মঞ্জুর করেন।

টাঙ্গাইলের সাবেক সাংসদ আমানুরের ভাই সহিদুর রহমান বর্তমানে টাঙ্গাইল কারাগারে বন্দী। অস্ত্র মামলায় জামিন পেলেও তাঁর মুক্তি মিলছে না। তিনি বীর মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদের হত্যা মামলায় এখনো জামিন পাননি।

টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি খোরশেদ আলম বলেন, আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় ছয় বছর পলাতক থাকার পর গত ২ ডিসেম্বর সহিদুর টাঙ্গাইলের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। পরে পুলিশি হেফাজতে ওই দিনই তিনি দ্বিতীয় অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন অস্ত্র মামলায়ও আত্মসমর্পণ করেন। তারপর থেকে তিনি টাঙ্গাইল জেলা কারাগারে আছেন। রোববার আইনজীবীদের মাধ্যমে সহিদুর অস্ত্র মামলায় জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালতের বিচারক সাউদ হোসেন তাঁর জামিন মঞ্জুর করেন।

বিজ্ঞাপন

টাঙ্গাইলের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) এস আকবর খান বলেন, অস্ত্র মামলায় জামিন পেলেও এখন কারাগার থেকে বের হতে পারছেন না সহিদুর। ফারুক হত্যা মামলায় জামিন না হওয়া পর্যন্ত তাঁকে কারাগারে থাকতে হবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালের ১৮ জানুয়ারি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফারুক আহমেদের গুলিবিদ্ধ লাশ তাঁর কলেজপাড়া এলাকার বাসার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়। ঘটনার তিন দিন পর তাঁর স্ত্রী নাহার আহমেদ বাদী হয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে হত্যা মামলা করেন। ফারুক হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ২০১৪ সালের আগস্টে আনিসুল ইসলাম রাজা ও মোহাম্মদ আলী নামের দুজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তাঁদের স্বীকারোক্তিতে এ হত্যার সঙ্গে তৎকালীন সাংসদ আমানুর রহমান খান, তাঁর ভাই তৎকালীন পৌর মেয়র সহিদুর রহমান খান, ব্যবসায়ী নেতা জাহিদুর রহমান খান এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি সানিয়াত খানের জড়িত থাকার বিষয়টি বের হয়ে আসে। তারপরই সহিদুর আত্মগোপনে চলে যান।

সহিদুর আত্মগোপনে থাকাকালে ২০১৫ সালে গোয়েন্দা পুলিশ সদর উপজেলার পোড়াবাড়ি থেকে কাদের জোয়ারদার নামক এক ব্যক্তিকে দুটি পিস্তলসহ গ্রেপ্তার করে। তিনি পুলিশকে বলেন, এই পিস্তল সহিদুর তাঁর কাছে রাখতে দিয়েছিলেন। এ মামলায় কাদের জোয়ারদার, সহিদুর ও নুরু নামক অপর এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন