বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভুক্তভোগী গৃহবধূর স্বজন ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, আত্রাই উপজেলার আন্দারকোটা গ্রামের মজনুর রহমানের মেয়ে পাতাসীর সঙ্গে তিন বছর আগে ওসমান আলীর বিয়ে হয়। পাতাসী ওসমান আলীর দ্বিতীয় স্ত্রী। বিয়ের পর থেকেই ওসমান ও নার্গিসের সঙ্গে পাতাসীর পারিবারিক কলহ চলছিল। এ নিয়ে একাধিকবার সালিস বৈঠক হয়।

পারিবারিক কলহের জেরে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে আবার তাঁদের মধ্যে কথা–কাটাকাটি শুরু হয়। একপর্যায়ে নার্গিস তাঁর কাছে থাকা ভ্যানিটি ব্যাগ থেকে বের করে পাতাসীর দিকে অ্যাসিড ছুড়ে মারেন। এতে পাতাসীর শরীরের বিভিন্ন অংশ ঝলসে যায়।

এ সময় ঘটনাস্থলে থাকা শিশু খাদিজা আক্তারসহ (৭) চার শিশুর শরীরে অ্যাসিড পড়ে। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে সবাইকে উদ্ধার করে রাণীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাতাসী ও খাদিজাকে নওগাঁ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। বাকিদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে ঘটনার পর গ্রামবাসী পাতাসীর স্বামী ওসমান আলী ও সতিন নার্গিসকে আটক করে রাখেন। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ ওই দুজনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

রাণীনগর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তরিকুল ইসলাম বলেন, গৃহবধূর ওপর অ্যাসিড নিক্ষেপের ঘটনায় ওসমান ও নার্গিসকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন