default-image

গাজীপুরের শ্রীপুরে রোববার সংঘর্ষের ঘটনায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পক্ষ থেকে থানায় পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছে। রোববার রাতে মামলাগুলো দায়ের হয়। সোমবার রাতে প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার ইমাম হোসেন।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার শ্রীপুরে আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী ও বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় মামলাগুলো দায়ের হয়েছে। শ্রীপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নূরে আলম বাদী হয়ে ১১২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ২০০-২৫০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে তাঁর প্রতিকৃতিতে ফুল দিতে যাওয়ার সময় আওয়ামী লীগের নেতা–কর্মীদের ওপর বিএনপির নেতা–কর্মীদের হামলা হয় বলে মামলায় উল্লেখ আছে। এ ছাড়া বিএনপির নেতা–কর্মীরা পিস্তল দিয়ে গুলি করে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছেন বলেও উল্লেখ করা হয়।

বিজ্ঞাপন

একই দিন বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী কাজী খান বাদী হয়ে থানায় ২৩ জনের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা আরও ২০০-২৫০ জনকে আসামি করে মামলা করেছেন। তিনি মামলায় উল্লেখ করেছেন, গত রোববার আওয়ামী লীগের নেতাদের নির্দেশে তাঁর কার্যালয়ে হামলা করেছেন দলটির সমর্থকেরা। এতে তিনিসহ বিএনপির কয়েকজন নেতা–কর্মী আহত হয়েছেন। এ সময় কার্যালয়ে থাকা আসবাব ভাঙচুর করা হয়।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার ইমাম হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, দুই দলের পক্ষ থেকে মামলা দায়ের হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত কার্যক্রম চলছে।

বিএনপির করা মামলায় দৈনিক দিনকালের শ্রীপুর উপজেলা প্রতিনিধি বশির আহমেদকে আসামি করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন