বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘আওয়ামী লীগে এত বিপুলসংখ্যক নেতা-কর্মী থাকার পরও সংগঠনের অবস্থা কি? নির্দ্বিধায় বলব, যে অবস্থায় সংগঠন থাকার কথা সেই অবস্থায় নেই।’

সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘এই যদি মানসিকতা হয় তবে মুখে হয়তো অনেক সুন্দর কথা বলতে পারব, কিন্তু আওয়ামী লীগকে কখনো শক্তিশালী সংগঠনে পরিণত করতে পারব না।’ তিনি বলেন, ‘আবেগতাড়িত হয়ে রাজনীতি করলে চলবে না।

আমরা বক্তব্য দিতে যখন মঞ্চে দাঁড়াই, তখন সুন্দর সুন্দর কথা বলি। আর ব্যক্তিগত জীবনে সেই সুন্দর কথা আমাদের স্মরণে থাকে না। আমরা সংকীর্ণতা দ্বারা প্রভাবিত হই। আত্মঘাতী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত হই। আমরা প্রত্যেকেই সত্যকে অস্বীকার করি।’

আ জ ম নাছির বলেন, ‘বিএনপি নামক দল এবং তাদের দোসর জামায়াত যে ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত করছে, এই প্রেক্ষাপটে এবং আগামী নির্বাচন আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই নির্বাচনে সরকারের ধারাবাহিকতার কোনো বিকল্প নেই। এই নির্বাচনে বিজয়ী হতে হলে আমাদের জনগণের সঙ্গে, সাধারণ মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়াতে হবে, তাদের আপদে-বিপদে, সুখে-দুঃখে পাশে দাঁড়াতে হবে।’

স্থানীয় সাংসদ মোছলেম উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, নগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মো. আনোয়ার হোসেন, চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর, চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার এস এম রশিদুল হক প্রমুখ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন