বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ, কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী ও আহত যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, পূর্বমাতাপুর গ্রামের বাবর আলীর মেয়ে সুমাইয়া খাতুন তার মা-বড় ভাই ও বান্ধবীকে নিয়ে শনিবার সকালে আক্কেলপুর টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে অষ্টম শ্রেণিতে ভর্তি হতে আসে। ভর্তি শেষে তাঁরা চারজন একটি ভ্যানে চড়ে বাড়িতে ফিরছিলেন।

বেলা দুইটার দিকে তাঁদের বহনকারী ভ্যানটি কেসের মোড়ে পৌঁছালে ভ্যানের একটি চাকা ভেঙে গতি হারিয়ে ফেলে। এ সময় জয়পুরহাট থেকে দ্রুতগতিতে আসা একটি কাভার্ড ভ্যান ওই যাত্রীবাহী ভ্যানটিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে ভ্যানচালক সুজন হোসেন ও সাব্বির হোসেন মারা যান। স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে হতাহতদের উদ্ধার করে আক্কেলপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সিনথিয়া (১৪) বলে, ‘আক্কেলপুর টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে আমার বান্ধবী সুমাইয়াকে অষ্টম শ্রেণিতে ভর্তি করিয়ে আমরা ভ্যানে চড়ে বাড়িতে ফিরছিলাম। হঠাৎ করে আমাদের ভ্যানের সঙ্গে কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কা লাগে। এরপর আমার আর কিছুই মনে নেই।’

আক্কেলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইদুর রহমান বলেন, যাত্রীবাহী ভ্যানের একটি চাকা ভেঙে গতি হারিয়ে ফেলে। এ সময় জয়পুরহাট থেকে দ্রুতগতিতে আসা কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় যাত্রীবাহী ভ্যানচালক ও একজন যাত্রী ঘটনাস্থলে মারা যান। এ ঘটনায় আরও তিনজন আহত হয়েছেন। কাভার্ড ভ্যানটি আটক করা হয়েছে। কাভার্ড ভ্যানের চালক ও সহকারী পালিয়ে গেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন