স্থলবন্দর সূত্রে জানা গেছে, দুই দেশে আটকে পড়া যাত্রীরা উভয় দেশে নিযুক্ত হাইকমিশনারের অনুমতি এবং দুই দেশের সরকারের কিছু নির্দেশনা অনুসরণ করে যাতায়াত করছেন।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, গত ২৬ এপ্রিল থেকে আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে যাত্রীদের যাতায়াত শুরু হয়। গত ২৬ এপ্রিল থেকে ১৬ জুন পর্যন্ত ১ হাজার ৭৪৬ জন বাংলাদেশে ফিরেছেন। তাঁদের মধ্যে বাংলাদেশ ও ভারত উভয় দেশের নাগরিক আছেন। এ পর্যন্ত বাংলাদেশের বিভিন্ন মেডিকেল কলেজে অধ্যয়নরত ১৩১ জন ভারতীয় নাগরিকও আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে ফিরেছেন। তাঁদের ঢাকার ব্র্যাক লার্নিং সেন্টারে কোয়ারেন্টিনের জন্য পাঠানো হয়েছে। আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে দেশে ফেরা ১ হাজার ৭৪৬ জনের মধ্যে গতকাল পর্যন্ত ১ হাজার ৩১৪ জন ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়পত্র নিয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূর-এ আলম প্রথম আলোকে বলেন, এখন পর্যন্ত ১ হাজার ৩১৪ জন ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিন শেষে ছাড়পত্র নিয়ে নিজের বাড়িতে ফিরে গেছেন। বর্তমানে জেলায় ২১৪ জন কোয়ারেন্টিনে আছেন।