default-image

দিনাজপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী রাশেদ পারভেজের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে আজ বৃহস্পতিবার রাশেদ পারভেজকে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দিয়েছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জ্যেষ্ঠ নির্বাচন কর্মকর্তা শাহিনুর ইসলাম প্রামাণিক।

এর আগে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি মনোনীত মেয়র প্রার্থী মেহেরুল ইসলাম আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রাশেদ পারভেজের বিরুদ্ধে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে আচরণবিধি লঙ্ঘনের লিখিত অভিযোগ করেন।

মেয়র প্রার্থী মেহেরুল ইসলাম লিখিত অভিযোগে জানান, শহরের মর্ডান মোড় এলাকায় আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী রাশেদ পারভেজ তাঁর নির্বাচনী জনসভার জন্য বিশাল মঞ্চ তৈরি করেছেন। শহরের প্রাণকেন্দ্র মর্ডান মোড়ে এই মঞ্চ হওয়ায় গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাগুলোতে জনসাধারণের চলার পথে বাধার সৃষ্টি করছে। এ ছাড়া রাত আটটার পর কার ও মোটরসাইকেল নিয়ে বিকৃত নির্বাচনী প্রচারকার্য চালিয়ে যাচ্ছেন, যা জনমনে বিভ্রান্তি ও বিরক্তির সৃষ্টি করাসহ জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করছে।

দ্বিতীয় দফায় ১৬ জানুয়ারি দিনাজপুর পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হয়েছেন জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ পারভেজ। বৃহস্পতিবার দিনাজপুর জেলা শহরের কেন্দ্রস্থল মর্ডান মোড়ে রাস্তার ওপর মঞ্চ সাজিয়ে ও চেয়ার বসিয়ে একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত আলোচনা সভা চলে। অতিথিরা উপস্থিত হন বিকেলে।

বিজ্ঞাপন

আলোচনা অনুষ্ঠানের ব্যানারে লেখা ছিল, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী, মুজিব বর্ষ উপলক্ষে আলোচনা সভা। যুবলীগ দিনাজপুর জেলা শাখা এই কর্মসূচির আয়োজন করে। সভায় সভাপতিত্ব করেন মেয়র প্রার্থী রাশেদ পারভেজ।

default-image

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নবী নেওয়াজ, মোয়াজ্জেম হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলালউদ্দিন, সোহেল পারভেজ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন প্রমুখ। অধিকাংশ বক্তা আগামী পৌর নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধভাবে নৌকার প্রার্থীকে জয়ী করার বিষয়ে বক্তব্য দেন।

এ ব্যাপারে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহিনুর ইসলাম প্রামাণিক বলেন, একজন প্রার্থীর অভিযোগ পেয়েছেন। আচরণবিধি লঙ্ঘন করে সমাবেশ করায় ওই প্রার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকেও অবগত করা হয়েছে। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রার্থীর কাছে এই সমাবেশ করার ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের প্রার্থী রাশেদ পারভেজ বলেন, ‘কী বিষয়ে শোকজ করা হয়েছে তার কোনো চিঠি পাইনি। চিঠি পেলে জবাব দেব।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন