প্রত্যক্ষদর্শী কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আদমদীঘি ও নসরতপুর ইউনিয়ন বিএনপির কমিটি গঠনের লক্ষ্যে আজ বিকেল চারটায় নসরতপুর ইউনিয়নের মুরুইল বাজারের একটি ধানের চাতালে সম্মেলন শুরু হয়। বিএনপি নেতা শহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ফজলুল বারী তালুকদার। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা বিএনপির সদস্য আলী আজগর তালুকদার। আদমদীঘি উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আনোয়ারুল ইসলাম তালুকদার, উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুল মহিত তালুকদার, পৌর বিএনপির সভাপতি ও সান্তাহার পৌরসভার মেয়র তোফাজ্জল হোসেনসহ বিএনপি নেতারা সম্মেলনে বক্তব্য দেন।

default-image

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে আদমদীঘি সদর ইউনিয়ন ও নসরতপুর ইউনিয়ন বিএনপির কমিটি ঘোষণার পরপরই কমিটি বাতিলের দাবিতে নেতা-কর্মীদের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে চেয়ার ছোড়াছুড়ি ও মারপিটে পাঁচ বিএনপি নেতা আহত হন। আহতদের মধ্যে বিএনপি নেতা আবদুস ছালাম ও হাজেদুল ইসলামকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আদমদীঘি উপজেলা সদর ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক গোলাম মোস্তফা প্রথম আলোকে বলেন, জেলা বিএনপির নেতারা সম্পূর্ণ অগণতান্ত্রিকভাবে দুটি ইউনিয়নের কমিটি ঘোষণা করেছেন, যা দলের গঠনতন্ত্রবিরোধী। সম্মেলনের নামে জেলা বিএনপির নেতারা উপজেলা আহ্বায়কের মাধ্যমে প্রায় সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন। তিনি ওই কমিটি বাতিলের দাবি জানান।

এ বিষয়ে আদমদীঘি উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আনোয়ারুল ইসলামের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। বগুড়া জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ফজলুল বারী তালুকদার মুঠোফোনে বলেন, তেমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। শুধু ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি শান্ত হয়ে গেছে। টাকা আত্মসাতের বিষয়ে তিনি বলেন, যে টাকা নেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে উপজেলা কমিটির খরচ বাদে বাকি টাকার হিসাব দেওয়া হবে। তিনি এ বিষয়ে আদমদীঘি উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক আনোয়ারুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন