default-image

আগামী রোববার থেকে লকডাউন শিথিল করে সব ধরনের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে। গতকাল শুক্রবার এই সরকারি ঘোষণা এসেছে। তবে এমন ঘোষণা শোনার পর এক দিন আগেই আজ শনিবার সকাল থেকে বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলা সদরসহ সান্তাহার জংশন শহরের সব ব্যবসায়ী তাঁদের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খুলে ফেলেছেন।

দোকানপাট খোলার সংবাদ পেয়ে আশপাশের গ্রামের লোকজন কেনাকাটার জন্য শহরে ছুটে আসেন। বেলা ১১টার দিকে মানুষ ও যানবাহনের চাপে সান্তাহার শহরে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

default-image

সরেজমিনে সান্তাহার শহরের বড় বিপণিবিতান সোনার বাংলা, আয়েজ প্লাজা, খন্দকার প্লাজাসহ অন্যান্য এলাকায় দেখা যায়, প্রায় সব ব্যবসায়ী তাঁদের দোকান খুলে পণ্যের পসরা সাজিয়ে কেনাবেচায় ব্যস্ত রয়েছেন। অন্যান্য দিন শহরে পুলিশের তৎপরতা নজরে পড়লেও আজ পুলিশের দেখা মেলেনি। এ বিষয়ে দু-একজন ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তাঁরা গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সীমা শারমিন বলেন, ‘আমার উপস্থিতি টের পেলে দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়, আবার আমি চলে গেলে দোকান খুলে যায়। এরপরও সাধ্যমতো দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। তবে মানুষকে সচেতন হতে হবে, তাহলেই করোনা মোকাবিলা সম্ভব।’

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন