default-image

ঝিনাইদহে আদালত প্রাঙ্গণে বিয়ে করার পর ধর্ষণ মামলার আসামি নাজমুল হোসেনকে (২০) জামিন দিয়েছেন আদালত। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আবু আহসান হাবিবের নির্দেশে এই বিয়ে সম্পন্ন হয়। নাজমুল ঝিনাইদহ জেলা শহরের কাঞ্চননগর এলাকার জাহিদুল ইসলামের ছেলে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, এক মেয়ের সঙ্গে নাজমুল হোসেন প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ২০২০ সালের ১৫ জানুয়ারি নাজমুল ওই মেয়ের বাড়িতে গিয়ে তাঁকে একা পেয়ে ধর্ষণ করেন। মেয়ে তখন বিয়ের জন্য নাজমুলকে চাপ দেন। কিন্তু তিনি বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানান। পরদিন মেয়েটি বাদী হয়ে ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন। পুলিশ ওই রাতেই নাজমুলকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠান। সেই থেকে নাজমুল কারাগারে ছিলেন।

ছেলের বাবা জাহিদুল ইসলাম বলেন, তাঁর ছেলের সঙ্গে ওই মেয়ের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল। মেয়ের পরিবার থেকে বিয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল। তাঁরা এ বিয়েতে রাজি ছিলেন না। পরে মেয়েপক্ষ ছেলের নামে ধর্ষণ মামলা করে। সেই মামলায় তাঁর ছেলে ১৩ মাস জেলে ছিলেন। আজ আদালত প্রাঙ্গণে তিন লাখ টাকা কাবিননামায় ছেলে–মেয়ের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। বিয়ের পর ছেলেকে জামিন দেওয়া হয়েছে। এতে তিনি খুশি। মেয়েপক্ষও খুশি বলে তিনি জানান।

আসামিপক্ষের আইনজীবী আমিনুল ইসলাম বলেন, মামলাটি চলমান। পুলিশ এখনো অভিযোগপত্র দেয়নি। তবে উভয়পক্ষের মধ্যে বিবাহ সম্পন্ন হওয়ায় নাজমুলকে আদালত জামিন দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন