default-image

রংপুরের তারাগঞ্জে তারা মিয়া (৩০) মিয়া নামের এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার হাড়িয়ারকুঠি ইউনিয়নের কোরানীপাড়া কবরস্থানের আমগাছ থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। লাশের হাত-পা প্লাস্টিকের রশি দিয়ে বাঁধা ছিল।

তারা মিয়ার বাড়ি কোরানীপাড়া গ্রামে। তাঁর বাবার নাম মনছুর আলী।

তারা মিয়ার পরিবারের সদস্য ও পুলিশ জানায়, সোমবার রাতের খাবার খেয়ে ঘরে ঘুমাতে যান তারা মিয়া। মঙ্গলবার সকালে এলাকার লোকজন তাঁরা মিয়ার বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরে হাত পা- বাঁধা অবস্থায় কোরানীপাড়া কবরস্থানের একটি আমগাছে তাঁর লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। বেলা ১১টার দিকে তারাগঞ্জ থানার পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে।

তারা মিয়ার মা সামিয়া বেগম বলেন, ‘ছাওয়া মোর গভীর রাইতোত মোবাইলোত কথা কইতে কইতে ঘরের বাইরোত চলি বেরাইছে। রাইতোত আর বাড়ি আইসে নাই। আজ গ্রামের লোকজন কবরস্থানোত ছাওয়ার লাশ দেখে খবর দেয়। ওরা মোর ছাওয়াক ডাকে নিগি মারি ফেলাইছে।’

তারা মিয়ার ভাই মো. সাইফুল বলেন, ‘জমিজমা, টাকাপয়সা নিয়া হামার গ্রামের কয়েকজনের সাথে ভেজাল আছে। মোর ভাইয়োক মারি ফেলার জন্যে মেলা দিন থাকি গ্রামের কয়েকজন হুমকি দেওছে। ওমরায় মোর ভাইয়োক মারি ফেলে গাছের ডালোত ঝুলি থুইছে। মুই ওমার বিচার চাও।

তারাগঞ্জ থানার ওসি ফারুক আহম্মেদ বলেন, তারা মিয়ার লাশ আমগাছের ডালের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় ঝুলে ছিল। লাশের হাত-পা প্লাস্টিকের রশি দিয়ে হালকাভাবে বাঁধা ছিল। লাশের শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন