বিজ্ঞাপন

নিহত এরশাদ আলম গোরনখাইন গ্রামের মৃত আবদুস ছবুরের ছেলে।
পটিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) তারিক রহমান প্রথম আলোকে বলেন, এরশাদের মেজ ভাই মোহাম্মদ ইছমাইলের একটি গাছ থেকে আম পাড়ছিলেন প্রতিবেশীরা। এ সময় এরশাদ ও তাঁর ভাই মোহাম্মদ নাছির তাতে বাধা দেন। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা–কাটাকাটি ও ঝগড়া শুরু হয়।

একপর্যায়ে প্রতিবেশীদের ছুরিকাঘাতে এরশাদ এবং চায়নিজ কুড়ালের কুপে তাঁর বড় ভাই নাছির গুরুতর আহত হন। তাঁদের চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক এরশাদকে মৃত ঘোষণা করে। গলায় ছুরিকাঘাতে এরশাদ মারা গেছেন।

কুসুমপুরা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেছেন, গাছটি নিয়ে প্রতিবেশীদের সঙ্গে বিরোধ রয়েছে এরশাদের পরিবারের। উভয় পক্ষই গাছটিকে নিজেদের বলে দাবি করে। গাছটি থেকে আম পাড়াকে কেন্দ্র করে ছুরিকাঘাতে নিহত হন এরশাদ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন