বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দণ্ডপ্রাপ্ত ওই যুবকের নাম মো. জহিরুল ইসলাম। আজ শনিবার সকালে আমতলী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে তাঁকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ আলম হাওলাদার বিষয়টি প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চরকগাছিয়া গ্রামের নবম শ্রেণির এক মাদ্রাসাছাত্রীর সঙ্গে পাশের উপজেলা তালতলীর ছোটবগী গ্রামের বারেক হাওলাদারের ছেলে জহিরুল ইসলামের বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। এদিকে বাল্যবিবাহের খবর পেয়ে আমতলী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. নাজমুল ইসলাম কনের বাড়িতে উপস্থিত হন।

এ সময় কনেপক্ষের লোকজন পালিয়ে গেলেও বরকে স্থানীয় লোকজন ও পুলিশ আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতে সোপর্দ করে। মো. নাজমুল ইসলাম বলেন, বর মো. জহিরুল ইসলামকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

মো. নাজমুল ইসলাম বলেন, ওই মাদ্রাসাছাত্রীকে বাল্যবিবাহ দেওয়া হবে না—এই মর্মে কনেপক্ষ থেকে মুচলেকা নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া জহিরুল ইসলামকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন