বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নাগেরহাটের কৃষক মেনহাজুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, এলাকায় কৃষিজমিতে আরও তিনটি ইটভাটা রয়েছে। ভাটাগুলোর আশপাশের জমিতে ঠিকমতো ফসল ফলে না। তিনি বলেন, ‘য্যাটে (যেখানে) নয়া ভাটা হওচে, তার পাশোতে মোর তিন বিঘা ভুঁই আছে। এই ভুঁইয়োত ধান আবাদ করিয়া মুই ছইল পইলের নেকাপড়া ও সংসার চলাও। ভাটা চালু করলে ভুঁইয়োত আর ধান হবার নেয়। তখন তো হামাক পথোত বইসপার নাগবে। জেবন থাকতে এই ভাটা চালু কইরবার দিবার নেই হামরা।’

ওই ইটভাটার পাশে ১৩ একরজুড়ে হাঁড়িভাঙা আমবাগান করেছেন কৃষক তুহিন শাহ্। তিনি বলেন, ‘তিন ফসলি কৃষিজমিতে অবৈধভাবে ওই ইটভাটা তৈরি করা হচ্ছে। নির্মাণাধীন ভাটা থেকে ২০০ গজের মধ্যে রয়েছে আমার আমের বাগান। ভাটায় ইট পোড়ানো শুরু করলে আমগাছে আর আম ধরবে না। আশপাশের জমিতে কোনো আবাদও হবে না। তাই আন্দোলন করছি ভাটার নির্মাণকাজ বন্ধ রাখতে। কিন্তু কোনো কাজ হচ্ছে না। নির্মাণকাজ জোরেশোরে চলছে। নিজেরা টিকে থাকার স্বার্থে ওই ভাটায় ইট পোড়াতে দেব না আমরা। প্রয়োজনে কঠোর আন্দোলন করব।’

এলাকার বিশ্ববিদ্যালয়পড়ুয়া শিক্ষার্থী আরমানুজ্জামান বলেন, আইন অনুযায়ী পাকা সড়ক ঘেঁষে এবং কৃষিজমিতে ইটভাটা নির্মাণ করার অনুমতি না থাকলেও তা করা হচ্ছে। অবিলম্বে ভাটার নির্মাণকাজ বন্ধ করা না হলে এলাকার কৃষকেরা জোটবদ্ধ হয়ে ব্যবস্থা নেবেন।

স্কুলশিক্ষক তাজুল ইসলাম বলেন, ‘বর্তমানে সবুজ ধানখেত দেখলে আমার মন জুড়িয়ে যাচ্ছে। সেই ধানখেতের মধ্যে নির্মাণ করা হচ্ছে ইটভাটা। এলাকার বিভিন্ন বাগানের আম ও কৃষিজমির ফসল রক্ষায় নির্মাণাধীন ইটভাটার কাজ অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। তা ছাড়া এলাকার কৃষকেরা টিকে থাকার স্বার্থে কঠোর আন্দোলনে নামবেন।’

এলাকাবাসী জানান, ১৬ সেপ্টেম্বর ওই ইটভাটার নির্মাণকাজ বন্ধের দাবিতে এলাকার লোকজন ভাটার পাশে মানববন্ধন করেছেন। গত বুধবার করেছেন সমাবেশ। তবু ভাটা নির্মাণের কাজ অব্যাহত রয়েছে।

নির্মাণাধীন ওই ইটভাটার মালিক রুহুল আমিন মুঠোফোনে বলেন, ‘ইটভাটা নির্মাণের অনুমোদন নিতে ইতিমধ্যে আবেদন করেছি। বিধি মেনে কোথাও কোনো ইটভাটা নির্মাণ করা হয়নি।’

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা মো. জোবাইদুর রহমান বলেন, ‘ওই স্থানে নতুন ইটভাটা নির্মাণে আমি কোনো ছাড়পত্র দিইনি।’

বদরগঞ্জের ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রেহেনুমা তারান্নুম বলেন, ‘নতুন করে কৃষিজমিতে ইটভাটা নির্মাণের বিষয়টি আমার জানা নেই। কেউ লিখিত অভিযোগ দিলে বিষয়টি দেখব।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন