default-image

লালমনিরহাটের পাটগ্রামে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা মামলায় আরও এক আসামিকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। সোমবার দুপুরে লালমনিরহাট আমলি আদালত-৩–এর বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফেরদৌসী বেগম এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ডে নেওয়া ওই আসামি হলেন হেলাল উদ্দিন (৩২)। তিনি পাটগ্রামের বুড়িমারীর উফারমারা গ্রামের মফিজ উদ্দিনের ছেলে। ১৪ নভেম্বর তাঁকে গ্রেপ্তার করে লালমনিরহাটের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ। ১৫ নভেম্বর আদালতে সোপর্দ করে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক মাহমুদুন্নবী। আজ আদালত তাঁর পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এর আগে রোববার দুপুরে বুড়িমারী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন আফাজ উদ্দিনকে (৬০) পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

লালমনিরহাটের গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওমর ফারুক বলেন, গত ২৯ অক্টোবর বুড়িমারীতে পবিত্র কোরআন অবমাননার মিথ্যা অভিযোগে আবু ইউনুছ মোহাম্মদ শহীদুন্নবী জুয়েলকে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত শহীদুন্নবী জুয়েলের চাচাতো ভাই সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে ৩০ অক্টোবর হত্যা মামলা করেন। হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত ১১ জন এবং তদন্তে প্রাপ্ত আরও ৯ জনসহ মোট ২০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই ঘটনায় করা পৃথক তিন মামলায় এখন পর্যন্ত ৩৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

২৯ অক্টোবর সন্ধ্যায় পাটগ্রাম উপজেলার বুড়িমারী মসজিদে পবিত্র কোরআন অবমাননার অভিযোগ তুলে রংপুর নগরের শালবন এলাকার বাসিন্দা আবু ইউনুছ মোহাম্মদ শহীদুন্নবীকে পিটিয়ে ও পুড়িয়ে হত্যার ঘটনাটি ঘটে।

মন্তব্য পড়ুন 0