বিজ্ঞাপন

নিহত ফায়েজ উদ্দিন পেশায় নৌকার মাঝি ছিলেন। তিনি রায়পুরা উপজেলার চানপুর ইউনিয়নের মাঝেরচর গ্রামের জরুন মিয়ার ছেলে। আজ শনিবার দুপুরে টেঁটাবিদ্ধ অবস্থায় রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, চানপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোসলেম মিয়া এবং ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি হযরত আলীর সমর্থকদের মধ্যে বিরোধ চলছে। ঈদের পর এসব বিরোধ নিরসনে দুপক্ষের লোকজনের একসঙ্গে বসার কথা ছিল।

এরই মধ্যে আজ শনিবার সকালে দুপক্ষের সমর্থকদের মধ্যে কথা-কাটাকাটির ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে আজ দুপুরে টেঁটাসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন দুপক্ষের শতাধিক মানুষ। এ সময় টেঁটাবিদ্ধ হন হযরত আলীর সমর্থক ফায়েজ উদ্দিন। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানকার চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

সংঘর্ষের সময় উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হয়েছেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। আহত লোকজনকে উদ্ধার করে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ নরসিংদী শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

রায়পুরার উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবু সাঈদ মো. ফারুক জানান, দুপুরের দিকে ফায়েজ উদ্দিন নামের টেঁটাবিদ্ধ এক ব্যক্তিকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়। সংঘর্ষের ঘটনায় হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা আহত ব্যক্তিদের মধ্যে ২ জনকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

রায়পুরা থানার উপপরিদর্শক দেবদুলাল দে জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি মোকাবিলায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন