বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সভা শেষে জানা যায়, সভায় সাংসদ সরওয়ার জাহান ২৮ নভেম্বর দৌলতপুরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থীদের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের আহ্বান জানান। এরপরও যাঁরা দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য করে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেবেন, তাঁদের বিরুদ্ধে দৌলতপুর আওয়ামী লীগ চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হবে।

সভার ব্যাপারে জানতে চাইলে দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এজাজ আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, চার ঘণ্টা ফলপ্রসূ বৈঠক হয়েছে। বৈঠকে তিনটি ইউনিয়নের বিদ্রোহী প্রার্থীরা আসেননি। সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে, যাঁরা বিদ্রোহী হিসেবে নির্বাচন করছেন, তাঁরা বৃহস্পতিবারের মধ্যে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নেবেন। আর যাঁরা করবেন না, তাঁদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে এবং তাঁদের বহিষ্কারের জন্য জেলা কমিটির কাছে সুপারিশ পাঠানো হবে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলার শীর্ষ এক নেতা বলেন, উপজেলার কয়েকজন নেতা বিদ্রোহী প্রার্থীদের মাঠে রাখতে সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন। এ বিষয়টিও জেলা ও কেন্দ্রে জানানো হচ্ছে।

দলীয় সূত্র জানায়, তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দৌলতপুরের ১৪টি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের ১৪ জন দলীয় প্রার্থীর বিপরীতে অন্তত ৫৬ জন বিদ্রোহী প্রার্থী রয়েছেন। আর আওয়ামী লীগের এসব বিদ্রোহী প্রার্থীকে নিয়ে দলীয় প্রার্থীরা রয়েছেন চরম শঙ্কা ও বিব্রতকর অবস্থায়। কাল বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। ২৮ নভেম্বর সেখানে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন