default-image

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয় ভাঙচুরের অভিযোগে শুক্রবার রাতে গোবিন্দগঞ্জ থানায় মামলা করা হয়েছে। গাইবান্ধা-৪ (গোবিন্দগঞ্জ) আসনের সাবেক সাংসদ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কালাম আজাদসহ ১৫০ জনের নামে মামলা করা হয়।

গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আলতামাসুল ইসলাম প্রধান বাদী হয়ে এই মামলা করেন। গোবিন্দগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আফজাল হোসেন মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ২০ ফেব্রুয়ারি দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সাংসদ আবুল কালাম আজাদের সমর্থকেরা উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় ভাঙচুর, বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ১৫ আগস্ট সপরিবার নিহতদের ছবি–সংবলিত ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে ও আসবাব ভাঙচুর করেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে সাবেক সাংসদ আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আমাকে পার্টি থেকে বহিষ্কারের ষড়যন্ত্র এবং জনগণের কাছে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করতে আমার বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় ২০ ফেব্রুয়ারি পরিকল্পিতভাবে ঘটনা ঘটানো হয়েছে। একটি মহল দলের কাছে এবং জনগণের কাছে আমার ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। থানায় মামলা দিয়ে আমাকে এবং আমার নেতা–কর্মীদের হয়রানি করা হচ্ছে।’

সাবেক সাংসদ আবুল কালাম আজাদ থানায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা হওয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান এবং একই সঙ্গে আওয়ামী লীগের  সর্বস্তরের নেতা–কর্মী, সুধী সমাজ এবং গোবিন্দগঞ্জবাসীর কাছে এই অপশক্তির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন