বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত রোববার রাত সাড়ে ১০টার মধ্যে নয়ারহাট বাজারের স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা দোকান বন্ধ করে চলে যান। দিবাগত রাত দেড়টার দিকে স্পিডবোট ও ট্রলারে করে ৩০ থেকে ৪০ জনের একদল ডাকাত বাজারসংলগ্ন বংশী নদীর ঘাটে নামে। তারা রাইফেল, রামদা, হাইড্রোলিক কাটার, সেলাই রেঞ্জ, রড নিয়ে বাজারে ঢোকে। বাজারের নিরাপত্তারক্ষীদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে হাত, পা ও মুখ বেঁধে একটি মুদি দোকানে ফেলে রাখে।

পরে বাজারের ১৭টি সোনার দোকান থেকে ডাকাত দল আনুমানিক ১২৬ ভরি স্বর্ণালংকার, ৯১২ ভরি রুপার গয়নাসহ নগদ ১৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। সব মিলিয়ে আনুমানিক ১ কোটি ২ লাখ ৩২ হাজার টাকার অলংকারসহ নগদ টাকা লুট হয়েছে বলে এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে। এর মধ্যে লুট হওয়া স্বর্ণালংকারের আনুমানিক বাজারমূল্য ৭৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা। আর রুপার গয়নার আনুমানিক মূল্য ৯ লাখ ১২ হাজার টাকা।

মামলার বাদী মনোরঞ্জন রাজবংশী প্রথম আলোকে বলেন, মামলায় তিনি বাদী হয়েছেন। থানায় মামলা দেওয়ার সময় ক্ষতিগ্রস্ত ছয়জন স্বর্ণ ব্যবসায়ী উপস্থিত ছিলেন।

এসআই হারুন অর রশিদ বলেন, নয়ারহাট বাজারে সোনার দোকানে ডাকাতির ঘটনাটি পুলিশ প্রশাসন খুবই গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন