default-image

ঢাকার আশুলিয়ায় তরুণী স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করেছেন স্বামী। আজ শনিবার আশুলিয়ার কাঁঠালতলা এলাকা থেকে স্ত্রীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহত তরুণীর নাম শাহিনুর খাতুন (১৮)। তাঁর স্বামীর নাম মো. রিপন মিয়া (২১)। তাঁরা আশুলিয়ার কাঁঠালতলা এলাকায় ভাড়া থেকে সেখানকার পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। তাঁদের বাড়ি সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলায়।

আশুলিয়া থানার পুলিশ জানায়, গতকাল শুক্রবার রাতের কোনো এক সময় স্ত্রী শাহিনুরকে শ্বাসরোধে হত্যার পর রিপন শাহজাদপুর চলে যান। আজ সকালে তিনি শাহজাদপুর থানায় গিয়ে আত্মসমর্পণ করে স্ত্রীকে হত্যার কথা স্বীকার করেন। পরে শাহজাদপুর থানার পুলিশ তাঁকে আটক করে বিষয়টি আশুলিয়া থানাকে জানায়। খবর পেয়ে আশুলিয়া থানার পুলিশ কাঁঠালতলা এলাকায় ওহাব মিয়ার বাড়ির একটি কক্ষ থেকে শাহিনুরের লাশ উদ্ধার করে। শাহিনুর ও রিপন ওই বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

শাহিনুরকে শ্বাসরোধে হত্যার পর লাশ ঘরে রেখে স্বামী রিপন বাইরে থেকে দরজায় তালা দিয়ে পালিয়ে শাহজাদপুর চলে যান।
বিজ্ঞাপন

আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জয়ন্ত মজুমদার বলেন, শাহিনুরকে শ্বাসরোধে হত্যার পর লাশ ঘরে রেখে স্বামী রিপন বাইরে থেকে দরজায় তালা দিয়ে পালিয়ে শাহজাদপুর চলে যান। আজ দুপুরে তালা ভেঙে ঘরে ঢুকে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

রিপনের আত্মসমর্পণের বিষয়টি নিশ্চিত করে শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিদ মাহমুদ খান বলেন, যেহেতু ঘটনাস্থল আশুলিয়ায় থানায়, তাই রিপনকে ওই থানায় হস্তান্তর করা হবে।

আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জিয়াউল ইসলাম বলেন, শাহিনুরের স্বজনদের খবর দেওয়া হয়েছে। তাঁরা এলে হত্যা মামলা করা হবে। ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে শাহিনুরের স্বামী রিপনকে আশুলিয়ায় এনে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে সোপর্দ করা হবে।

মন্তব্য পড়ুন 0