বিজ্ঞাপন

নুর আলম শরীফ আরও বলেন, ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে তিন দিন ধরে জোয়ারের পানি গ্রামে ঢুকছে। বাড়িঘরসহ পুরো গ্রাম পানিতে ভাসছে। এ কারণে তাঁরা আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছেন। জোয়ারের পানির চাপ কমলে ছেলেকে নিয়ে বাড়ি ফিরবেন বলে জানালেন।

লালুয়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শওকত হোসেন বিশ্বাস বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে এই দম্পতিকে খাদ্যসহায়তা দেওয়া হচ্ছে। তিনি নিজেও খোঁজখবর রাখছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা চিন্ময় হাওলাদার প্রথম আলোকে বলেন, মা ও সন্তান সুস্থ আছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন