পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রায়পুরা থানার এসআই আরিফ রাব্বানী এক সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন, ডাকাতির মামলায় পরোয়ানাভুক্ত আসামি স্বপন মিয়া অলিপুরার জাহাঙ্গীরনগর এলাকায় অবস্থান করছেন। তিনি কয়েকজন পুলিশ সদস্য নিয়ে বিকেল চারটার দিকে স্বপন মিয়াকে গ্রেপ্তারের জন্য যান। নিজের ঘরেই অবস্থান করছিলেন স্বপন। ঘরে ঢুকে স্বপনকে গ্রেপ্তার করতে গেলে তাঁর পরিবারের লোকজনের সঙ্গে আরিফের ধস্তাধস্তি হয়। একপর্যায়ে আরিফের মাথায় দা দিয়ে কুপিয়ে পালিয়ে যান স্বপন। এ সময় পুলিশ সদস্য আল আমিনও আহত হন। স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় অন্য পুলিশ সদস্যরা তাঁদের দুই সহকর্মীকে উদ্ধার করে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানকার জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে আরিফকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। আর আল আমিন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেই চিকিৎসাধীন।

পুলিশের ভাষ্য, স্বপন মিয়ার নামে রায়পুরা থানায় ছিনতাই, ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে। দীর্ঘদিন পলাতক থাকার পর মঙ্গলবার নিজ বাড়িতে এসেছিলেন তিনি।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুর রহমান বলেন, এসআই আরিফ রাব্বানীর মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত লেগেছে। রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তাঁকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। এরই মধ্যে আসামি স্বপন মিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন